আজ- বুধবার, ২৩শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৯ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

তপু বর্মন ‘বাংলার রামোস’


।। ডেস্ক রিপোর্ট।।

দলীয় শক্তি, ফিফা র‍্যাংকিং বা সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স- সবখানেই এগিয়ে ছিল আফগানিস্তান। এতেও দমে যাওয়ার পাত্র নয় লাল সবুজের বাংলাদেশ। মাঠের লড়াইয়ে এগিয়ে থাকা আফগানিস্তানকে জিততে দেয়নি বাংলাদেশ। ২০২২ বিশ্বকাপ ও ২০২৩ এশিয়ান কাপের যৌথ বাছাই পর্বের ম্যাচে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ১-১ ব্যবধানে ড্র করেছে জামাল ভূঁইয়ার দল। বাংলাদেশের হয়ে গোলটি করেছেন ডিফেন্ডার তপু বর্মন।

স্পেন ও রিয়াল মাদ্রিদের ডিফেন্ডার সার্জিও রামোসের মত নিচে থেকে ওপরে ওঠার অভ্যাস আগেই ছিল তপুর। তাইতো ভক্তরা ভালোবেসে তপুকে ডাকে ‘বাংলার রামোস’ হিসেবে। যদিও রামোসের সঙ্গে তপুর তুলনা ঠিক যায় না। কিন্তু ৩২টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলে বাংলাদেশের ডিফেন্ডার হয়ে তিনটি গোল করাও কম কথা নয়। আফগানিস্তানের বিপক্ষে গোলটি দীর্ঘদিন মনে রাখতে চাইবে বাংলাদেশের সমর্থকেরা। এর আগে সাফে ও পাকিস্তানের বিপক্ষে শেষের দিকে একটি গোল করেছিলেন তপু বর্মন।

তপুর খেলোয়াড় হয়ে উঠার সূচনা নারায়ণগঞ্জে। বাবা দয়াল বর্মন নারায়ণগঞ্জে মাছের ব্যবসা করেন। মা ঠাঁকুর দাসী বর্মণ গৃহিনী। বড় ভাই দিপু বর্মন ফুটবল খেললেও তপুর মতো বড় মঞ্চে কখনোই খেলার সুযোগ পাননি। তা নিয়ে অবশ্য দিপুর কোনো আফসোস নেই, বরং ছোট ভাই যাতে খেলাটা চালিয়ে যেতে পারেন, সেই চেষ্টাটা করে গেছেন বারবার।

নারায়ণগঞ্জে গোদনাইল হাজারীবাগে তপুদের বাসা। এখানেই তপুর বেড়ে ওঠা। লক্ষ্মী নারায়ণ কটন মিলের মাঠে খেলে বড় হয়েছেন তপু। বাবা দয়াল বর্মনই বড় ছেলে দিপুকে বলে রেখেছিলেন, ‘ছোটটাকেও মাঠে নিয়ে যাও। খেলাটা শিখুক।’

তপু এবং দিপু দুজনেই সেখানকার স্থানীয় কোচ জাকির হোসেনের কাছে প্রশিক্ষণ নিয়েছেন। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে পাল্লা দিয়ে ঢাকার ফুটবলে পা রাখেন তপু। ওয়ারী ক্লাব, মোহামেডান, আবাহনীর হয়ে ক্লাব ফুটবলে খেলেছেন। সেখান থেকে জাতীয় দল। ঘরোয়া ফুটবলে বর্তমানে তপু খেলছেন বসুন্ধরা কিংসের হয়ে। এর আগে খেলেছিলেন সাইফের হয়ে।

লাল সবুজের এই স্মার্ট ডিফেন্ডার সম্পর্কে বিশ্বকাপ খেলা কোস্টারিকার ড্যানিয়েল কলিন্ড্রেস বলেছেন, ‘তাকে পরাজিত করা এবং একটি গোল করা কঠিন’।

রাউল বেকেরা তো বলেই দিলেন, ‘তিনি একজন ভাল ডিফেন্ডার, স্ট্রাইকারের পক্ষে তাকে পরাস্ত করা সহজ নয়’।

স্প্যানিশ কোচ অস্কার ব্রুজনের মতে, ‘স্ট্রাইকারদের তাকে মারধর করা খুব কঠিন কাজ, সে খুব এই পরিশ্রমী এবং গতিশীল প্লেয়ার’।

ডেইলি/ এস

 


এই রকম আরও খবর

সর্বশেষ খবর

বিশেষ খবর