আজ- বুধবার, ২৩শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৯ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

বিপ অ্যাপে বিদেশি বাজারে এগিয়ে বাংলাদেশিরা


।। ডেস্ক রিপোর্ট।।

তুরস্কের সুরক্ষিত যোগাযোগ মাধ্যম বিপ অ্যাপ ব্যবহারে বিদেশি বাজারে বাংলাদেশিরা এগিয়ে রয়েছেন। ২০২১ সালের প্রথম প্রান্তিকে বাংলাদেশে ২৫ লাখ বার বিপ ডাউনলোড হয়েছে।

শুক্রবার (৭ মে) সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জনসংযোগ প্রতিষ্ঠান বেঞ্চমার্ক পিআর ঢাকা পোস্টকে এসব তথ্য জানিয়েছে। এতে বলা হয়েছে, বিপ সম্প্রতি নতুন এক ফিচার নিয়ে এসেছে। এখন থেকে ব্যবহারকারীরা অন্য অ্যাপের গ্রুপ চ্যাট বিটপে স্থানান্তর করতে পারবেন। বিশ্বের ৮ কোটি মানুষ এখন বিপ ব্যবহার করেন।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বিপ উদ্ভাবনী বিনিয়োগ নিশ্চিত করার পাশাপাশি গ্রুপ চ্যাট সহজে স্থানান্তরের সুযোগ দিচ্ছে। এর ফলে ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত ও গ্রুপ চ্যাটের সব ধরনের ভিডিও-ছবি একত্রে স্থানান্তর করে নিয়ে আসা যাবে। বিপে গ্রুপ স্থানান্তর করতে হলে একেকজন অংশগ্রহণকারীকে আলাদাভাবে সংযুক্ত করার প্রয়োজন পড়ে না। বিপ সরাসরি সব অংশগ্রহণকারীদের একত্রে স্থানান্তর করে দেয়।

বিপের প্রধান নির্বাহী বুরাক আকিনসি বলেন, ‘ডিজিটাইজেশন ধীরে ধীরে রীতিতে পরিণত হচ্ছে। মেসেজিং অ্যাপ এখন আর নিছক মেসেজিংয়ের জন্য ব্যবহৃত হয় না। এটা এক ধরনের অপরিহার্য ইকো সিস্টেমে পরিণত হয়েছে। যার মাধ্যমে আমরা যোগাযোগ করার পাশাপাশি কর্মক্ষেত্র ও বাণিজ্যেও ব্যবহার করছি। তবে ব্যবহারকারীদের সেই ইকো সিস্টেম নিরাপদ হতে হবে।

তিনি বলেন, সাইবার হুমকির এ যুগে ব্যক্তি, ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান ও ভোক্তা প্রতিনিয়ত নিরাপত্তাহীনতায় ভোগেন, সেখানে গ্রাহকদের নিরাপত্তা ও সম্মতি গুরুত্বপূর্ণ। তথ্যের নিরাপত্তার গুরুত্ব যেমন আমরা বুঝি, তেমনি তা রক্ষা করা যে নৈতিকতার মধ্যে পড়ে, তাও আমরা বুঝি। আমরা গ্রাহকদের নির্বিঘ্নে মাইগ্রেশন করার অভিজ্ঞতা দিতে চাই। নির্বিঘ্ন মাইগ্রেশনের অভিজ্ঞতা দিতে পারাটা আমাদের আন্তরিক ও পূর্ণাঙ্গ গ্রাহক অভিজ্ঞতার প্রমাণ।’

বাংলাদেশের বাজার বাড়ছে

বাংলাদেশের বাজারের গুরুত্বের কথা উল্লেখ করে আকিনসি বলেন, ‘বাংলাদেশের ব্যবহারকারীরা আমাদের প্রথম দিনই সাদরে গ্রহণ করেছেন। ২০২১ সালের প্রথম প্রান্তিকে বাংলাদেশে বিপ ডাউনলোড হয়েছে ২৫ লাখ বার। বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মে আমাদের রেটিং মানও উচ্চ। বৈশ্বিক ডিজিটাল অর্থনীতিতে বাংলাদেশ এক উদীয়মান নক্ষত্র। অন্যান্য প্ল্যাটফর্মের জন্যও এক অমূল্য অভিজ্ঞতা বয়ে নিয়ে এসেছে বাংলাদেশ।

তিনি বলেন, আমরা বাংলাদেশের স্থানীয় কনটেন্ট সরবরাহকারী ও অন্যান্য অপারেটরদের সঙ্গে ফলপ্রসূ সম্পর্ক গড়ে তুলতে কাজ করছি। বাংলাদেশি ব্যবহারকারীদের দৈনন্দিন জীবন আরও সহজ করতে আমরা উদ্ভাবনী ও প্রাসঙ্গিক সমাধান প্রদানের লক্ষ্যে বিনিয়োগ করে যাব। বাংলাদেশি গ্রাহকদের প্রতি কৃতজ্ঞতাস্বরূপ আমরা এই বিনিয়োগ করব।

প্রয়োজনের সময় বাংলাদেশি ব্যবহারকারীরাই নেতৃত্ব দেন

বাংলাদেশি ব্যবহারকারীরা বিপের এইচডি মানের ভিডিও ব্যবহার করে থাকেন। ১০ জন নিয়ে এই ভিডিও কল করা যায়। কল করার ক্ষেত্রে বিপের আন্তর্জাতিক বাজারে বাংলাদেশ সেরা। সাধারণত সপ্তাহের সোমবারে সবচেয়ে বেশি বিপ ডাউনলোড হয়। এছাড়া দেশের অভ্যন্তরে সর্বাধিক ডাউনলোডের ক্ষেত্রে ঢাকা সবার চেয়ে এগিয়ে।

বিপ যে তাৎক্ষণিক অনুবাদ ও গোপন মেসেজিংয়ের সেবা দেয়, তা বাংলাদেশি ব্যবহারকারীদের কাছে অত্যন্ত সমাদৃত। বিপ তাৎক্ষণিকভাবে ১০৬টি ভাষায় শব্দ ও শব্দবন্ধ অনুবাদ করে দেয়, যার মধ্যে বাংলা ও উর্দু আছে। এই বিল্ট-ইন রিয়েল-টাইম অনুবাদ সেবার জন্য কানেক্টেড কনজ্যুমার ক্যাটেগরিতে বিপ ২০২০ সালে গ্লোবাল মোবাইল অ্যাওয়ার্ড পেয়েছে।

সিক্রেট চ্যাট বা গোপনীয় বার্তা আদান-প্রদান বাংলাদেশি ব্যবহারকারীদের মধ্যে অত্যন্ত জনপ্রিয়। এর বৈশিষ্ট্য হলো, ব্যবহারকারীদের নির্ধারণ করে দেওয়া সময়ের মধ্যে এইসব বার্তা হারিয়ে যায়। সে কারণে ব্যবহারকারীরা অত্যন্ত নিরাপদ বোধ করেন। বিপ এসব বার্তার ব্যাক আপ সংরক্ষণ বা সেগুলো ডিক্রিপ্ট করে না। বিপ তৃতীয় পক্ষের সঙ্গেও কোনো ধরনের তথ্য শেয়ার করে না। সব তথ্য তুরস্কের হাইটেক ডেটা সেন্টারে সংরক্ষিত থাকে। ব্যবহারকারীদের ওপর কিছুই চাপিয়ে দেওয়া হয় না। যা করা হয়, সম্মতির ভিত্তিতেই করা হয়।

গ্রুপ মেসেজিংয়ে এক হাজার জনের অংশগ্রহণ

বিশ্বের ১৯২টি দেশে ব্যবহৃত হচ্ছে বিপ। এই প্ল্যাটফর্মে ১০ জন ব্যক্তি একসঙ্গে এইচডি মানের ভিডিও কলে অংশ নিতে পারেন। তাৎক্ষণিক মেসেজিং ও ভয়েস কল তো আছেই। এছাড়া গ্রুপ চ্যাটে এক হাজার ব্যক্তি অংশগ্রহণ করতে পারেন। যাদের সঙ্গে বেশি যোগাযোগ করা হয়, হোম স্ক্রিনে তাদের শর্টকাট মেলে।

এছাড়াও বিপ সম্প্রতি ডার্ক মোড ও পার্সোনালাইজড মেন্যুর মতো উন্নত ফিচার যুক্ত করেছে। আরও কিছু ফিচার যুক্ত করায় টেক্সট ফরম্যাটিং আরও উন্নত হয়েছে। এগুলো হলো- বোল্ড, ইটালিক, স্ট্রাইক থ্রু, আন্ডারলাইন। চ্যাট আর্কাইভ তো আছেই। তার বাইরে এসব বৈশিষ্ট্য যুক্ত হয়েছে।

স্থানীয় সংস্কৃতিতে বিপ বিশেষ মনোযোগ দেয়। সে জন্য বাংলাদেশে ক্রিকেট ও রমজান চ্যানেল চালু করা হয়েছে। রমজান মাস জুড়ে বাংলাদেশে বিপ ব্যবহারকারীরা বিভিন্ন স্থানের ইফতার ও সেহরির সময় অ্যাপের মাধ্যমে জানতে পারছেন, যদি তারা চান। রমজানের চ্যানেলে ধর্মীয় বাণী, মেন্যু ও খাবারের রেসিপি প্রচারিত হচ্ছে। স্থানীয় চাহিদার পরিপ্রেক্ষিতে ক্রিকেট চ্যানেল চালু করা হয়েছে। যেখানে খেলার স্কোর, দলের তথ্য, সরাসরি স্কোর ও মূল্যায়ন প্রচার করা হয়।

গুগল প্লে অ্যাপ স্টোর, গুগল প্লে ও হুয়াওয়ে অ্যাপ গ্যালারি থেকে বিপের হালনাগাদ অ্যাপ ডাউনলোডের ঠিকানা : http://onelink.to/bip-bd

ডেইলি / এইচ


এই রকম আরও খবর

সর্বশেষ খবর

বিশেষ খবর